রঙ্গের দুনিয়া সৌদি আরব

সৌদি প্রিন্সের প্রকাশ্যে শিরশ্ছেদ

শেয়ার করুন

প্রিন্স তুর্কি বিন সৌদ বিন তুর্কি বিন সৌদ আল কাবির বন্ধুর সাথে তর্ক করতে গিয়ে মেজাজ ঠিক রাখতে পারলেন না ৩ বছর আগের এক সন্ধ্যায়। নিজের পিস্তল দিয়ে গুলি করলেন বন্ধু আদেল বিন সুলাইমান বিন আব্দুল করিম বিন মোহাম্মদকে। তারপর নিজেই পুলিশকে ফোন করলেন। বললেন, ‘বন্ধুকে মেরে ফেলেছি, মাথা ঠিক ছিলো না’। গত ৩ বছর রক্তের মূল্য হিসাবে নিহতের পরিবারকে ব্ল্যাংক চেক দিয়েছিলো রাজ পরিবার। কিন্তু আদেল বিন সুলাইমান বিন আব্দুল করিম বিন মোহাম্মদ এর পরিবার রক্তপণ নেয়নি। বেদুইনদের আদি সংস্কৃতি রক্তের বদলে রক্তই নিয়ে নিলো।

মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বাদ আসর রিয়াদের ধিরা জাতীয় মসজিদ মাঠে প্রকাশ্যে শিরচ্ছেদের মাধ্যমে মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হলো প্রিন্স তুর্কি বিন সৌদ বিন তুর্কি বিন সৌদ আল কাবিরের। ইন্টেরিয়র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে-

‘তদন্তের পর তার অপরাধ প্রমাণিত হয়েছে এবং তার সাজার রায় জেনারেল কোর্টে পাঠানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছিল তা প্রমাণিত হওয়ায় তাকে ফাঁসির দন্ড দেয়া হয়।’

সৌদি মূল রাজ পরিবারের রাজপুত্র তুর্কি। তার বাবা সউদ, তার দাদা তুর্কি, আর বড় দাদা সউদ আল কাবির, সৌদি আরবের জনক বাদশাহ আব্দুল আজিজের আপন চাচাতো ভাই। ৩ বছর সাধারণ মানুষদের সাথে একই জেলে থেকে গতকাল রিয়াদের সন্নিকটে তার শিরোচ্ছেদ হলো। এ বছর তাকে নিয়ে ১৩৪ জন মানুষ বিভিন্ন অপরাধে মুন্ডু হারালো। ১৯৭৫ সালে প্রিন্স ফয়সাল বিন মুসাইদ আল সৌদ কথিত ইসরাইলের ষড়যন্ত্রে হত্যা করেছিলো বাদশাহ ফয়সালকে। কারণ ছিল তেল ব্যবসা। তার শিরশ্ছেদ হয়েছিল ১০,০০০ মানুষের সামনে। তার কয়েক বছর পরে আরো এক রাজকন্যা আর রাজপুত্রকে মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়েছিল জিনা ঘঠিত অপরাধে।

প্রিন্স তুর্কি বিন সৌদ বিন তুর্কি বিন সৌদ আল কাবিরের শিরশ্চেদের মাধ্যমে, সৌদি রাজ-পরিবার শরিয়া আইন প্রণয়নে যে অবিচল তা আবারো প্রমাণ করলো। মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সবাইকে নিশ্চিত করা হয় যে, সৌদি নাগরিকের সাথে অপরাধমূলক কর্মকান্ড এবং রক্তপাত যে-ই করে থাকুক, আল্লাহর আইন বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে বাদশা সালমান দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। যারাই এ ধরণের অপরাধ করার সাহস দেখাবে তাদের জন্য এটা একটা সতর্ক সঙ্কেত।

Mobarak

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.