Featured সৌদি আরব

সৌদি আরবের ‘গ্রিন কার্ড’ কি আপনার জন্য?

শেয়ার করুন

গত মঙ্গলবার মন্ত্রী পরিষদের বৈঠকে ‘প্রিভিলিজ ইকামা’ বা গ্রিন কার্ডের আদলে বিশেষ ইকামা সুবিধার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছেন সৌদি বাদশাহ সালমান । জেদ্দাস্থ আল সালাম প্যালেসে মঙ্গলবার (১৪ মে) রাতে এই যুগান্তকারী সিদ্ধান্তের চূড়ান্ত অনুমোদন দেন বাদশাহ ! তারও আগে গত বুধবার ( ৮মে) সৌদি আরবের মজলিশে শুরাতে বিশেষ ইকামার খসড়া প্রস্তাব অনুমোদন পায় ।

বিশেষ ইকামার খবর অনেকেই নানাভাবে প্রকাশ করছেন । এমনকি বাংলাদেশের সংবাদ মাধ্যমগুলোতেও এর ভুল ব্যাখ্যা দেখা গিয়েছে । আদতে বিশেষ ইকামাধারী হতে পারবেন কেবলমাত্র বিশেষ শ্রেণীর মানুষরাই । যারা বিপুল সম্পদশালী । সৌদি আরবে বড় রকমের ইনভেস্ট করার যোগ্যতা যাদের রয়েছে এবং মোটা অংকের (৫ লাখ রিয়াল সর্বনিম্ন) টাকার বিনিময়ে যারা এই ইকামা গ্রহণ করার সক্ষমতা রাখেন ।

কাদের জন্য এই আয়োজন?

বিশ্বের ৩০ টি দেশের অন্তত ৭৬ টি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান বিগত বছর গুলোতে এই দেশে তাদের ব্যবসা পরিচালনার লক্ষ্যে আবেদন করে। যাদের নিজ দেশ ছাড়াও ভিন্ন ভিন্ন দেশে ইতিমধ্যে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। কিন্তু পুর্বের আইনে তারা ভরসা পাচ্ছিলেন না। বিশেষ করে তাদের জন্যই এই বিশেষ সুবিধা যুক্ত আইন।

কী কী থাকছে বিশেষ ইকামা সুবিধাতে?

১. এই ইকামাধারীরা তাদের পরিবারের জন্য স্থায়ী ভিসা ও আত্মীয়দের জন্য ভ্রমণ ভিসা ইস্যু করতে পারবেন।
২. নিজেদের নামে ব্যবসা চালাতে পারবেন, কফিল ছাড়াই ।
৩. এদেশে সম্পদ ও যানবাহনের মালিকানা নিতে পারবেন ।
৪. নিজের প্রতিষ্ঠানে নিজের নামেই কর্মী নিয়োগ দানের স্বাধীনতা পাবেন।
৪. ইচ্ছেস্বাধীনভাবে সৌদি আরবের বাইরে এবং অভ্যন্তরে ভ্রমণ বা আসা যাওয়া করতে পারবেন ।
৫. এয়ারপোর্ট এবং প্রাশাসনিক বিভিন্ন কাজে সৌদি নাগরিকদের মতই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সুবিধা পাবেন ।

কিছু প্রশ্ন মাথায় রেখে সৌদি গ্রিন কার্ডকে স্বাগত জানালো প্রবাসীরা

শুরা কাউন্সিলের সভাপতি শেখ আবদুল্লাহ আল-আশেখ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৪১তম শুরা কাউন্সিলের সভায় এই যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সম্পদশালী বিদেশীদের আকর্ষণ করাই এই আইনের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। বিশেষ এই ইকামা সুবিধা নেবার জন্য বিদেশিদের উপর বিশেষ ফি ধার্য করা হবে । বিশেষায়িত এই ইকামাটি প্রদানের জন্য আলাদা কেন্দ্র-ডিপার্টমেন্ট প্রতিষ্ঠা করা হবে।

বিশেষ ইকামা হবে দুই ধরনের;
১) অনির্দিষ্ট (দীর্ঘমেয়াদী) কালের জন্য এবং
২) একবছর মেয়াদী (রিনিউ করার সুযোগসহ)।

কী কী যোগ্যতা লাগবে এই ইকামার আবেদন করতে?

১. এই ইকামার জন্য আবেদনকারীদের বৈধ পাসপোর্ট অবশ্যই থাকতে হবে ।

২. বড় রকমের বিনিয়োগ করার মত যোগ্যত হতে হবে (অন্ততঃ ৫ লাখ সৌদি রিয়াল/ সমপরিমাণ) ৷

৩. ব্যবসায়ী বা বড় আকারে ব্যবসা শুরু করার মত আর্থিক স্বচ্ছলতা থাকতে হবে ।

৪. সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে ।

৫. অথবা নিজ নিজ পেশায় অত্যন্ত যোগ্যতা এবং দক্ষতার সনদ থাকা জরুরি । যেমন: ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার ইত্যাদি ।

৬. এবং কোনও প্রকার পূর্ব অপরাধের রেকর্ড থাকা যাবে না।

প্রতিবেদক- সালাউদ্দিন খান, সৌদি আরব

মরুর দেশ কাতারে ইফতার আয়োজন

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.