Featured ইরান মধ্যপ্রাচ্য

বিমানের সব ক্রু এবং যাত্রী নিহত!

শেয়ার করুন

ইরানের জারগোস পর্বত এলাকায় যে ইরানী বিমানটি দূর্ঘটনায় পড়ে তার ক্রুসহ ৬৬ জন যাত্রীর সবাই নিহত হয়েছে। রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে ঐ এয়ারলাইন্সের মুখপাত্র এ তথ্য জানিয়েছেন। আজ রোববার ইরানের স্থানীয় সময় সকাল ৮টায় জাগরোস পার্বত্যাঞ্চলে এই বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনা ঘটে।

দ্য এসিয়েমান এয়ারলাইনের জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ তাবাতাবাই বলেন-

‘যে এলাকায় বিমানটি দূর্ঘটনার তথ্য আমরা পেয়েছি, সেই এলাকা তন্ন তন্ন করে খোঁজা হয়েছে। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, ঐ দূর্ঘটনায় আমরা সবাইকেই হারিয়েছি।’

এর আগে দেশটির জরুরি সেবা বিভাগের প্রধান পীর হোসেন কুলিভান্দ জানিয়েছিলেন-

‘বিমানটি সেমিরম এলাকায় বিধ্বস্ত হয়েছে। বিমানে ৬ জন ক্রুসহ ৬০ জন যাত্রী ছিল। জরুরি ভিত্তিতে সবাইকে উদ্ধার কাজে নিয়োজিত করা হয়েছে।’

মোহাম্মদ তাবাতাবাই রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারকেন্দ্র আইআরআইবিকে বলেন, রাজধানী থেকে ৫০০ কিলোমিটার দক্ষিণে জাগরোস অঞ্চলের দেনা পর্বতে উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়। ইয়াসুজ থেকে ২৩ কিলোমিটার দূরে ছিল তা। ‘ওই এলাকা তল্লাশির পর দুর্ভাগ্যবশত আমরা জানতে পারলাম উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়েছে। অত্যন্ত কষ্টের সঙ্গে জানাচ্ছি সবাই নিহত হয়েছেন।’

বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় নিহতদের পরিবার ও স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী এবং প্রেসিডেন্ট হাসান রূহানি।

একটা সংবাদ সংস্থা বিমানটিকে ATR-72 হিসেবে চিহ্নিত করেছে এবং জানিয়েছে সেটি তেহরান থেকে ইরানের দক্ষিণের শহর ইয়াসুজে যাচ্ছিল।

যুগ যুগ ধরে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের বাণিজ্যিক বিমানগুলো অনেক পুরনো হয়ে গেছে এবং সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দূর্ঘটনার সংখ্যাও বেড়ে গেছে। ২০১৫ সালে বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলোর সাথে পারমানবিক চুক্তির পর বেশ কিছু যাত্রীবাহী বিমান কেনার জন্য এয়ারবাস এবং বোয়িং এর সাথে চুক্তি করেছে ইরান।

  • নাসির মাহমুদ, তেহরান, ইরান
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.