ইরান এশিয়া

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া সফরে ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. জাওয়াদ জারিফ তাঁর আঞ্চলিক দেশ সফর কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন। তারই অংশ হিসেবে গতকাল তিনি ইরাকের রাজধানী বাগদাদে সেদেশের প্রেসিডেন্ট বাহরাম সালেহ এবং প্রধানমন্ত্রী আদিল আব্দুল মাহদিসহ পদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।

একই সময়ে ইরানের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্বাস আরাকচিও ওমান সফর করেছেন এবং মাস্কাটে সেদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইউসূফ বিন আলাভির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। সাক্ষাতে তিনি বলেছেন, ইরান পারস্য উপসাগরীয় সকল দেশের সঙ্গে সম্মান ও পারস্পরিক স্বার্থের ভিত্তিতে গঠনমূলক ও ভারসাম্যপূর্ণ সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করতে প্রস্তুত।

মালয়েশিয়ায় দেড় লাখ টাকায় কর্মী পাঠাতে কাজ করছে সরকার; প্রতিমন্ত্রী

প্রকৃতপক্ষে ড. জারিপের এই সফরের উদ্দেশ্যই হলো প্রতিবেশি ও বন্ধুপ্রতিম দেশের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করা এবং তেহরানের আঞ্চলিক কূটনীতি ব্যাখ্যা করা। আঞ্চলিক সংলাপ ও নিরাপত্তা স্থানীয়করণ ইরানের পররাষ্ট্র ব্যবস্থার প্রধান দুটি মূলনীতি ।

এ লক্ষ্যে ইরাকের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে জারিফ একটি প্রস্তাব দিয়েছেন। তিনি বলেছেন পারস্য উপসাগরীয় দেশগুলোর সঙ্গে কোনোরকম আগ্রাসনে না যাওয়ার ব্যাপারে একটি আঞ্চলিক চুক্তি স্বাক্ষর করা যেতে পারে। তাঁর এই প্রস্তাব নি:সন্দেহে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের ব্যাপারে সদিচ্ছার প্রমাণ। যদিও আমেরিকা আঞ্চলিক দেশগুলোর কাছে ইরানভীতি ছড়িয়ে দিয়ে মূলত কোনো কোনো আরব দেশকে তাদের তেল বিক্রির টাকার পরিবর্তে অস্ত্র দেয়ার অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল করতে চায়। মার্কিন এই স্বার্থনীতি আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও শান্তির জন্য হুমকি।
ইরাক সফরের আগে ড. জারিফ চীন, জাপান, ভারত এবং পাকিস্তান সফর করেছেন।

 

শতবারও যদি ভেঙে থাকো অঙ্গীকার, তবু ফিরে এসো!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.