Featured বাংলাদেশ থেকে

‘সরকার দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের সুরক্ষায় কাজ করছে’

প্রতিবন্ধীরা রাষ্ট্রের বোঝা নয়, তারা কোনো সমস্যাও নয়। দৃষ্টি প্রতিবন্ধীসহ সকল প্রতিবন্ধীদের উন্নয়ন ও সুরক্ষায় বর্তমান সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে। সরকার প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নে বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে যাচ্ছে। কর্মক্ষেত্রে প্রতিবন্ধীরা খুবই নিষ্ঠাবান হয়। তাদের ভুলভ্রান্তি হয় কম। ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র বিতর্ক অনুষ্ঠানে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী নূরুল ইসলাম বিএসসি

শনিবার সকাল ১১ টায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র কর্পোরেশন-এর (এফডিসি) ৮ নম্বর ফ্লোরে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত দৃষ্টি-প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ‘যুক্তি আলোয় দেখি’ বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী জনাব নুরুল ইসলাম বিএসসি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ। প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নের মূলধারায় সম্পৃক্ত করা শীর্ষক এ বিতর্ক প্রতিযোগিতা চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় এবং ইডেন মহিলা কলেজের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে।

অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধীদের বক্তব্য শুনে আবেগআপ্লুত হয়ে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী জনাব নুরুল ইসলাম বিএসসি দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের জন্যে ৫ লাখ টাকা প্রদানের ঘোষণা দেন। এছাড়াও ভবিষ্যতে এ ধরনের আয়োজনে আরও সহযোগিতার আশ^াস দেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি আরও বলেন, পরিবারে প্রতিবন্ধীত্ব অভিশাপ নয়, শ্রষ্টার আর্শীবাদ। ঘরের লক্ষী হিসেবেই প্রতিবন্ধীর আগমন ঘটে। প্রয়োজন তাদের প্রতি সার্বিক দৃষ্টি পরিবর্তনের। প্রতিবন্ধীদের প্রতি কোনো ধরনের উপেক্ষা, বঞ্চনা, বৈষম্য গ্রহণযোগ্য নয়। তাঁদের মধ্যে যে অন্তহীন আত্মশক্তি লুকায়িত রয়েছে তাঁর বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নে সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে। প্রতিবন্ধীরা অনেক কাজের জন্যেই উপযোগী। সমস্ত বাস্তবতাকে বিবেচনায় নিয়ে প্রতিবন্ধীদেরকে উন্নয়নের মূলধারায় এগিয়ে নিতে হবে।

ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, উন্নয়নের মূলধারায় সম্পৃক্ত করতে হলে প্রতিবন্ধীদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, কর্মসংস্থান ও বিনোদনসহ তাদের সামাজিক নিরাপত্তা ও পুনর্বাসন নিশ্চিত করতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অন্তর্ভূক্তিমূলক শিক্ষাব্যবস্থা থাকা উচিত। সরকারি চাকুরীতে প্রতিবন্ধীদের জন্য প্রদত্ত কোটা বাধ্যতামূলক করে অন্ততপক্ষে ৫% কোটা রাখা দরকার। দুঃস্থ প্রতিবন্ধীদের ভাতা বাড়িয়ে বর্তমানে প্রদত্ত ৭শ টাকার পরিবর্তে ১৫শ টাকা করা প্রয়োজন। একই সাথে ভাতার আওতায় ৮ লাখের জায়গায় বাড়িয়ে কমপক্ষে ২০ লাখ করা প্রয়োজন।

আগামীতে যাতে জাতীয় সংসদে প্রতিবন্ধীদের জন্য অন্ততপক্ষে ৩টি সংরক্ষিত আসন রাখার দাবিসহ স্থানীয় সরকার ব্যবস্থায়ও যাতে প্রতিবন্ধীদের প্রতিনিধিত্ব থাকে সে বিষয়েও তিনি সুপারিশ করেন। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসির দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি আরও বলেন, অনেক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী রয়েছে যারা ইসলামী জ্ঞান সমৃদ্ধ এবং ভালো কোরআন তিলাওয়াত ও ইমামতি করতে পারে। এসব প্রতিভাবান দৃষ্টি-প্রতিবন্ধী ইসলামী স্কলারদের মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে মসজিদ, মাদ্রাসাসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতে সরকারিভাবে বিনা খরচে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করার অনুরোধ করেন।

প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন অধ্যাপক আবু মোহাম্মদ রইস, মু. শাহ আলম চৌধুরী, অধ্যাপক রোকেয়া পারভীন জুঁই, সাংবাদিক ফারিয়া হোসেন, ড. তাজুল ইসলাম চৌধুরী তুহিন। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মধ্যে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় (পাহাড়িকা) ও ইডেন কলেজ মুখোমুখি হয়। প্রতিযোগিতা শেষে অতিথিরা অংশগ্রহণকারী দলসমূহের বিতার্কিকদের ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান করেন। অনুষ্ঠানে প্রিণ্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

 

  • প্রবাস কথা ডেস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.