Featured বাংলাদেশ থেকে

র‍্যাগিংয়ের দায়ে ৯ শিক্ষার্থীকে বুয়েটের হল থেকে আজীবন বহিষ্কার

শেয়ার করুন

বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর একটি বড় অংশে র‍্যাগিং এর ধারা অব্যাহত রয়েছে বলে প্রায়শই জানা যায়। এর বাইরে নয় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর মত প্রতিষ্ঠানও! তবে বেশ আটঁঘাট বেঁধেই র‍্যাগিং দূরীকরণের চেষ্টা করছে বুয়েট।

এবার বুয়েটের দুটি হলে র‍্যাগিং এ জড়িত থাকার দায়ে ৯ শিক্ষার্থীকে হল থেকে আজীবন বহিষ্কার করা হয়েছে। একই সঙ্গে এই ৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম থেকেও বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বুয়েট প্রশাসন।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে বুয়েটের ছাত্রকল্যাণ পরিদফতরের পরিচালক ও বোর্ড অব রেসিডেন্স অ্যান্ড ডিসিপ্লিন কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক মিজানুর রহমান এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

বিভিন্ন সময়ে র‍্যাগিং এ জড়িত থাকার দায়ে আরও ১৭ শিক্ষার্থীকে হল থেকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার এবং ৪ জনকে সতর্ক করা হয়েছে।

বিভিন্ন মেয়াদে অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম এবং হল থেকে আজীবন বহিষ্কার হওয়া ৯ শিক্ষার্থী হলেন-

সব্যসাচী দাস দিব্য, সৌমিত্র লাহিড়ী, প্লাবন চৌধুরী, নাহিদ আহমেদ, অর্ণব চৌধুরী, মো. ফরহাদ হোসেন, মো. মোবাশ্বের হোসেন শান্ত, এএসএম মাহাদী হাসান, আকিব হাসান রাফিন।

র‍্যাগিং বন্ধে বুয়েটে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে বোর্ড অব রেসিডেন্স অ্যান্ড ডিসিপ্লিন কমিটি এ শাস্তির সিদ্ধান্ত নেয়।

এ বিষয়ে আন্দোলনকারী এক শিক্ষার্থী জানান,

উপাচার্যের সাথে বুধবার আমাদের বৈঠক হয়েছে। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি ডিসেম্বরের ২৮ তারিখ থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবো।

তবে, পরীক্ষা শুরু হওয়ার এক সপ্তাহ আগে তৃতীয় দাবিটি বাস্তবায়ন না হলে পরীক্ষায় অংশ নেবেন না তারা।

এ বিষয়ে বুয়েট প্রশাসন জানায়,

তৃতীয় দাবিটির বিষয়ে কাজ চলমান রয়েছে। আগামী সপ্তাহের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

এছাড়া তিতুমীর হলে র‍্যাগিং এ জড়িত আরও কিছু নতুন শিক্ষার্থীর নাম তদন্ত কমিটির কাছে এসেছে। তাই আরও তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে আগামী সোমবার ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

  • সুমাইয়া হোসেন লিয়া, প্রবাস কথা, ঢাকা।
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.