নিহত নাম ইমরান খান।
Featured অভিবাসন ইউরোপ মাল্টা

ভূমধ্যসাগরে বাংলাদেশি যুবকের মৃত্যু, লাশ নিতে আগ্রহী নয় পরিবার

পরিবারের আর্থিক সচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে প্রায় একবছর আগে অবৈধ পথে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপ প্রবেশকালে ইমরান নামের এক বাংলাদেশী যুবকের মৃত্যু হয়। দীর্ঘ এগারো মাস যাবত লাশটি ইউরোপের ছোট্ট দেশ মাল্টার একটি হাসপাতালের মর্গে পরে আছে। নানা ঝামেলার কারনে নিহতের লাশ দেশে নিতে অনাগ্রহ প্রকাশ করছে নিহতের পরিবার।

নিহতের নাম ইমরান খান। সে শরিয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার কেদারপুর গ্রামের মান্নান খানের ছেলে।

স্থানীয় প্রবাসী বাঙ্গালীদের মাধ্যমে জানা যায়, ২০১৮ সালে ইমরান ইউরোপে পাড়ি জমানোর উদ্দেশ্যে প্রথমে লিবিয়া যান। পরে ঐ বছরের ১৬ আগস্ট ইমরান দালালের মাধ্যমে আরও ৯০ জন বাংলাদেশীর সাথে লিবিয়া থেকে ছোট্ট একটি নৌকায় করে ইউরোপের উদ্দেশ্যে রওনা হন। প্রায় পাঁচ দিন খাবার ও পানি ছাড়া থাকার পরে ধীরেধীরে সবাই অসুস্থ হয়ে পরে।

একপর্যায়ে ইমরানসহ আরও বেশকয়েকজন নৌকার মধ্যে মারা যায়। একসময় নৌকাটি ভাসতে ভাসতে মাল্টার উপকূলে আসলে দেশটির কোষ্টগার্ড দ্রুত তাদের উদ্ধার করে জীবিতদের চিকিৎসার মাধ্যমে আশ্রয়কেন্দ্রে পাঠায় আর মৃতদের লাশ পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মর্গে রাখে হয়।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ আট মাস পর পরিবার ইমরানের মৃত্যুর খবর পায়। কিন্তু লাশ দেশে নিতে অনেক ঝামেলা পোহাতে হবে এছাড়াও মাল্টায় তাদের পরিচিত কেউ নেই বলে লাশটি তারা দেশে নিতে অনাগ্রহ প্রকাশ করছে।

এছাড়া মাল্টার বাঙ্গালী কমিউনিটির সদস্যরা বলেন, অনেক জটিলতার পরে আমরা ইমরানের পরিচয় শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছি। পরে ইমরানের ইতালি প্রবাসী বোনের সাথে যোগাযোগ করলে সে কথা বলতে রাজি হননি। এছাড়াও বাংলাদেশে ইমরানের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করা হলে আর্থিক সমস্যাসহ নানা জটিলতার অজুহাত দেখিয়ে লাশটি দেশে নিতে অনাগ্রহ প্রকাশ করে।

স্থানীয় প্রবাসী বাংলাদেশীরা আরও বলেন, ইমরানের লাশটি দেশে পাঠাতে হলে প্রায় ছয় থেকে সাত লাখ টাকার প্রয়োজন। ইতিমধ্যে আমরা সবাই মিলে সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছি। দেশটিতে বাংলাদেশী দূতাবাস না থাকায় মরদেহ পাঠানোর প্রক্রিয়াটি বেশ জটিল। এখানকার সকল কাজ গ্রিসে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে করা হয়। আশাকরি আমরা এ মাসের মধ্যেই লাশটি দেশে পাঠাতে সক্ষম হব।

প্রতিবেদন- সাইফুল ইসলাম মুন্সী, ইতালি

আরও পড়ুন- ইরানে রমজান মাসের সংস্কৃতি ও কোরআনাবাদ নামে এক গ্রামের কথা

প্রবাসীদের সব খবর জানতে; প্রবাস কথার ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.