Featured এশিয়া ভারত

বিয়ের কনে সেজে অপরাধীকে ধরলেন নারী পুলিশ!

শেয়ার করুন

একজন অপরাধীকে ধরতে পুলিশকে কত কৌশলই না গ্রহণ করতে হয়। এবার অপরাধীকে ফাঁদে ফেলার অনন্য এক নজির গড়েছে এক নারী পুলিশ।

গত এক বছর ধরে দুর্ধর্ষ এক অপরাধীকে বাগে আনার চেষ্টা করছে পুলিশ। এই অপরাধীর নামে রয়েছে মোট ১৬টি মামলা, যার মধ্যে খুনের মামলাও রয়েছে একাধিক।ভারতের মধ্যপ্রদেশের বুন্দেলখণ্ড পুলিশের সকল কৌশলই এড়িয়ে যাচ্ছিলো এই খুনী।

এরই মাঝে পুলিশের কাছে হঠাৎ খবর আসে, পলাতক সেই অপরাধী বিয়ে করার জন্য পাত্রী খুঁজছেন!

ব্যস, এই সুযোগের সৎ ব্যবহারই করলেন পুলিশ কর্মকর্তারা। সিনেমার গল্পের মতোই প্লট সাজালেন তারা। ‘বালকিষাণ চৌবে’ নামের অপরাধীকে গত এক বছর ধরে খুঁজছিল পুলিশ। এমনকী তার মাথার দাম ঘোষণা করা হয়েছিল দশ হাজার টাকা!

গত আগস্টে মধ্যপ্রদেশের নওগাঁওতে এক ব্যক্তিকে হত্যার পর পালিয়ে যান বালকিষাণ চৌবে। এই অপরাধীকে ধরতে এক নারী পুলিশ সদস্য তার সঙ্গে যোগাযোগ করেন, তবে বিয়েতে আগ্রহী পাত্রি সেজে। কিছুদিন কথা বলার পর দেন বিয়ের প্রস্তাবও। আর এই ফাঁদেই পা দেয় বালকিষাণ। ঠিকই পরের দিন বর সেজে বিয়ে করতে আসে এই খুনী। আর তখনই তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে,

উত্তরপ্রদেশের বিজোরি গ্রামের বাসিন্দা বালকিষাণ চৌবে। বুন্দেলখণ্ডের এক নারী কর্মীর নামে একটি সিম কার্ড জোগার করে বালকিষাণের সঙ্গে কথা বলা শুরু করেছিলেন সেই নারী পুলিশকর্মী।

সংবাদমাধ্যম আরও জানায়,

এক সপ্তাহের মধ্যেই সেই পুলিশকর্মী বালকিষাণকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। বিজোরি গ্রামের একটি মন্দিরে বিয়ের জন্য উপস্থিত হন বালকিষাণ। আগে থেকেই সেখানে পুলিশকর্মীরা ফাঁদ পেতে রেখেছিলেন।

এই ব্যতিক্রমী ঘটনায় সাড়া জেগেছে পুরো ভারতজুড়ে। পুলিশের সেই নারী সদস্যকে প্রশংসায় ভাসাতেও কমতি রাখছেন না কেউ। তবে বেশিরভাগেরই মত ১৬টি মামলা হওয়ার আগেই এই অপরাধী গ্রেফতার হলে ঠিকই পুলিশ যথাযথ প্রশংসা পেতো।

  • সুমাইয়া হোসেন লিয়া, প্রবাস কথা, ঢাকা।
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.