Featured কাতার মধ্যপ্রাচ্য

বাংলাদেশিদের জন্য উন্মুক্ত কাতারের শ্রমবাজার, প্রাধান্য পাবে দক্ষ কর্মীরা

শেয়ার করুন

দীর্ঘ কয়েক মাস বন্ধ থাকার পর বাংলাদেশিদের জন্য কাতারের শ্রমবাজার উন্মুক্ত হয়েছে। দেশটিতে কোম্পানি ভিসায় কর্মী নেওয়া শুরু করেছে৷ বাংলাদেশ থেকে আগে কোম্পানি ভিসায় লোক যেত কিন্তু বেশ কিছু অভ্যন্তরীণ সমস্যার কারণে বিগত কয়েক মাস যাবত কোম্পানি ভিসায় বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিয়োগ বন্ধ ছিল। ২০১৯ সালের মার্চের পর থেকে নতুন করে কোন ভিসা দেয়নি উপসাগরীয় অঞ্চলের এই দেশটি৷

যদিও গত বছর প্রায় ৬০ হাজার লোক কাতারে এসেছেন তার মধ্যে বেশির ভাগ লোক গৃহকর্মী, ড্রাইভার, মালি এবং দোকান বা হোটেলে কাজ করার জন্য মহিলা গৃহকর্মী হিসেবে দেশটিতে এসেছেন।

কিন্তু কোম্পানির কাজের জন্য বেশ কয়েক মাস ভিসা বন্ধ ছিল এমনকি ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ এ নিয়োগের জন্য কোন লোক নেওয়া হয়নি, কিন্তু কয়েকদিন আগে কোম্পানি ভিসায় কর্মী নিয়োগের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়৷ গত ৩ এবং ৪ জানুয়ারী কাতার এবং বাংলাদেশের ওয়ার্কিং গ্রুপের সঙ্গে একটি বৈঠকের মাধ্যমে এই বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়।

বৈঠকে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল কাতারের প্রতিনিধি দলকে প্রস্তাব রাখে বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিয়োগের ব্যাপারে কারণ অনেক সময় চাহিদা থাকা সত্ত্বেও কাতারের সরকার বাংলাদেশি ভিসাকে স্থগিত রেখেছিলেন।

সেই সময়ে কাতারের প্রতিনিধিদল বেশকিছু শর্ত সাপেক্ষে নতুন করে কোম্পানি ভিসা চালু করার ব্যাপারে সম্মত হয়৷ সেখানে যে বিষয়গুলো নিয়ে বিশেষভাবে আলোচনা করা হয় তা হচ্ছে, অভিবাসন ব্যয় নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখতে হবে। এছাড়া মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে সেই ব্যয় বহন করবে কোম্পানি।

সরকারিভাবে কাতারে আসতে হলে এক লক্ষ সাত হাজার আশি টাকা সর্বোচ ব্যয় যা বাংলাদেশ সরকার নির্ধারণ করেছেন৷ এছাড়া এখন বেশ কিছু সুযোগ সুবিধার কথা বলা হয়েছে, যেমন মেডিকেল এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট এখন বাংলাদেশ থেকে করা যাবে। এতে কোন শ্রমিক কাতারে আসার সঙ্গে সঙ্গেই তার আকামা তৈরি করতে পারেন এবং কর্মস্থলে যোগদান করতে পারবেন৷

কাতার ২০২২ সালে ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ আয়োজন করতে যাচ্ছে, সেজন্য দেশটিতে কর্মী নিয়োগের তাদের নিরাপত্তা এবং চাকরির ক্ষেত্রে কাজের পরিবেশের বিষয়ে খুব বেশি সচেতনতা অবলম্বন করছে৷

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, এত সব সুযোগ-সুবিধা দিয়ে কাতার সরকার কাদেরকে ভিসা দিয়ে নিয়ে আসবে অর্থাৎ কারা খুবই কম খরচে কাতারে আসতে পারবেন?

প্রথম যে শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে তা হলো- তারা অবশ্যই দক্ষ কর্মী নিয়োগ করবেন অর্থাৎ আগের মতো অদক্ষ কর্মীর পক্ষে কাতার আসা সম্ভব হচ্ছে না। অর্থাৎ আপনি যে পেশাতেই আসেন না কেন আপনাকে আপনার সেই পেশাতে অবশ্যই দক্ষতা অর্জন করে আসতে হবে৷

যে সকল খাত গুলোতে এখন দক্ষ কর্মী নিয়োগ করা হবে তার মধ্যে বিশেষ উল্লেখযোগ্য হচ্ছে কৃষি ক্ষেতে, পরিসেবা ক্ষেত্রে অর্থাৎ বিদ্যুৎ পানি ক্লিনিং, সিকিউরিটি গার্ড, হাসপাতাল কর্মী৷

দক্ষ কর্মীদের কাতারে আসার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা হিসেবে অবশ্যই আসার আগে খুব ভালো ভাবে আপনাকে আপনার কাগজপত্র দেখে বুঝে আসতে হবে। এক্ষেত্রে আপনার ভিসায় অভিবাসন ব্যয় কে বহন করবে এবং আপনার বেতন কত হবে এছাড়া কি ধরনের সুযোগ-সুবিধা আপনি পাচ্ছেন তার বিস্তারিত সেখানে দেওয়া থাকবে৷

  • রেজওয়ান বিশ্বাস, প্রতিনিধি, কাতার।
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.