Featured বাংলাদেশ থেকে

আলোচিত ফেনী নদীর চুক্তি নিয়ে হাইকোর্টে রিট

শেয়ার করুন

সম্প্রতি বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার স্বাক্ষরিত ফেনী নদীর পানি চুক্তি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনার অন্ত নেই। শুধু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমই নয়, বরং বিভিন্ন মহল থেকেই এই চুক্তির বিষয়ে নতুন করে ভেবে দেখার প্রসংগ তুলে আনা হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে সম্প্রতি হাইকোর্টে দায়ের করা হয়েছে একটি রিট।

ফেনী নদীর পানি নিয়ে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সম্পাদিত চুক্তি নিয়ে হাইকোর্টে দায়ের করা রিট আবেদনে ফেনী নদী থেকে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে পানি সরবরাহ ও পাম্প বসানোর ক্ষেত্রে বাংলাদেশের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ রাখার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে এ রিটের শুনানি হতে পারে।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. মাহমুদুল হাসান হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট দায়ের করেন। রিটকারী জানান,

ফেনী নদী থেকে পানি সরবরাহের ক্ষেত্রে পানির পাম্প ও সরবরাহ ব্যবস্থাপনার উপর বাংলাদেশের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ থাকা আবশ্যক। অন্যত্থায় চুক্তির ব্যত্যয় ঘটিয়ে ভারত যদি ইচ্ছাকৃতভাবে অথবা অনিচ্ছাকৃতভাবে অধিক পরিমাণে পানি নেয় সেক্ষেত্রে বাংলাদেশ বঞ্চিত হবে।

তিনি আরও বলেন,

বাংলাদেশের সাথে যে কোন রাষ্ট্রের কোন চুক্তি যদি সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক হয় সেক্ষেত্রে হাইকোর্টের পূর্ণ ক্ষমতা আছে উক্ত চুক্তির উপর হস্তক্ষেপ করার।

উল্লেখ্য, এই রিট মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এই চুক্তি স্থগিত রাখতে সরকারকে নির্দেশ দেওয়ার কথাও এতে তুলে ধরা হয়েছে। এই রিটে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, পররাষ্ট্র সচিব, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিবকে বিবাদী হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

  • সুমাইয়া হোসেন লিয়া, প্রবাস কথা, ঢাকা।
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.