Featured ইউরোপ পর্তুগাল

পর্তুগালে বাংলাদেশ কমিউনিটির নতুন মসজিদ

শেয়ার করুন

পর্তুগালে একটা সময় ছিল যখন ধর্মপ্রান মুসলিম কমিউনিটি তাদের নামাজ আদায়ের নিদিষ্ট কোন জায়গা পেত না! কিন্তু বিগত কয়েক দশকে পর্তুগালে মুসলিম কমিউনিটি এবং মসজিদের সংখ্যা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে দেশটিতে প্রায় ষাট হাজারের বেশী বিভিন্ন দেশের মুসলিম নাগরিক বসবাস করছেন।

বর্তমানে সমগ্র পর্তুগাল জুড়ে ছোট বড় মিলিয়ে প্রায় সাতান্নটি মসজিদের তথ্য পাওয়া যায়। যার মধ্যে বাংলাদেশ কমিউনিটি কতৃক স্থাপিত পঞ্চম মসজিদটি সাম্প্রতিক সময়ে সরকারি ভাবে স্বীকৃত হলো লিসবনের অদূরে কাসকাইস শহরে। লিসবনে দুটি, ফোর্তোতে একটি এবং রিবেলেইরোতে একটি মসজিদের পরে সর্বশেষ কাসকাইসে এই মসজিদটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বাংলাদেশ কমিউনিটি কতৃক।

কাসকাইস লিসবন থেকে মাত্র প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূরের আধুনিক একটি শহর। দু-দশক আগে সেখানে কোন বাংলাদেশী লোকজন না থাকলেও বর্তমানে শহরটিতে প্রায় ৪০ টির মত পরিবার বসবাস করছেন এবং ব্যবসা বানিজ্য ও চাকুরীজীবী সহ প্রায় ৩০০ লোকের বসবাস। তাছাড়া ৫০ টির মতো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে বাংলাদেশিদের তত্ত্বাবধানে এবং প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠছে শহরটিতে।

তার ধারাবাহিকতায় গত দুই বছর আগে কাসকাইসে বাংলাদেশ কমিউনিটি এবং ব্যবসায়ীদের সন্মিলিত প্রচেষ্টায় একটি মসজিদ প্রতিষ্ঠিত হয়। নিয়মিত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের পাশাপাশি জুম্মার নামাজ এবং পাশের খোলা মাঠে ঈদের জামাতও চালু রয়েছে মসজিদটিতে।

সাম্প্রতিক সময়ে মসজিদটি সরকারীভাবে রেজিস্ট্রি করা হয়েছে। সেই উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে এক বিশেষ দোয়া মাহফিল ও মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করা হয়।

কাসকাইস ইসলামিক কমিউনিটির সভাপতি জনাব ফারুক আহমেদ, সহ সভাপতি মাহমুদ আলী এবং সেক্রেটারি মেহেদি হাসানের সার্বিক পরিচালনায় দোয়া মাহফিল ও মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বাংলাদেশী ও বিদেশি মুসল্লিরা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামি সেন্টার লিসবনের নেতৃবৃন্দ, লিসবনের বাংলাদেশ কমিউনিটির ব্যক্তিবর্গ এবং সাংবাদিক সহ আরো অনেকই।

  • রাসেল আহম্মেদ, লিসবন, পর্তুগাল
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.