Featured ইউরোপ স্পেন

“দেশে যাওয়া প্রবাসীদের নিয়ে কিছু কথা”

শেয়ার করুন

মন্তব্য প্রতিবেদন- 

বাংলাদেশে শেষ দিকে যাওয়া প্রবাসীদের নিয়ে কিছু কথা। বিশেষ করে ইতালি ফেরত প্রবাসীদের কথা। প্রথমে বলে রাখি, আমি স্পেন প্রবাসী। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অনেক পোষ্ট চোখে পড়েছে। বিশেষ করে দেশে যাওয়া প্রবাসীদের নিয়ে গাল মন্দ।

আমরা কেন এতো স্বার্থপর হলাম? যারা এই সময়ে দেশে ফিরেছেন তাদের বিমানের টিকিট ১-২ মাস আগ থেকেই কাটা ছিলো। গুটি কয়েক হয়তো আর্জেন্ট হতে পারে। দোষ কি বাংলাদেশিদের ছিলো না এয়ারলাইন্সের? ইতালি বা বাংলাদেশ সরকারের? এখন তে সব বন্ধ কেউ যেতে পারছেনা? জরুরী অবস্থা কি ছিলো তখন?

বাংলাদেশে কি এখনো পুরো জরুরী অবস্থা জারি হয়েছে? তখনতো করোনা পরীক্ষা করার কিটই ছিলো না বাংলাদেশে। দুইটা এয়ারপোর্ট তাদের সার্টিফিকেট দিয়েছে। তাহলে আপনি কি করে বলছেন ওদের কাছে করোনা আছে! তাহলে কেনো এত হয়রানি গালাগালি। আমরা প্রবাসী, কিন্তু আমাদের বড় পরিচয় আমরা বাংলাদেশি।

প্রায় দেড কোটি বাঙ্গালী আমরা প্রবাসী। করোনা থেকে আপনি বাচার জন্য মরিয়া। আর প্রবাসীরা মরে যাক তাই চান? আমরা দেশ থেকে খালী হাতে আসছি, আমাদের সব কিছুই দেশে। আপনি যে ফেসবুকে এসে পোষ্ট দেন, আপনি চোখ বন্ধ করে দেখুন, আপনার পরিবার আত্নীয় স্বজন কতো জন প্রবাসে আছে। আপনি কি শোনেন আমার পরিবারের কান্না আমার বউয়ের কান্না। আপনি কি জানেন আমার বন্ধুরা আমাকে নিয়ে কতো টেনশন করে?

তারা বলছে দেশে চলে আয়, বাংলাদেশে হয়ত চিকিৎসা ব্যবস্থা ভালো না। কিন্তু আফসোস তো এক জায়গায়। করোনায় মারাত্মক ভাবে আক্রান্ত দেশ সবগুলোই উন্নত কিন্তু সংক্রমণ কমাতে পারছেনা। কেউই চায় না আমি মরে যাই। আমরাও চাই না আমাদের জন্য পরিবার মরে যাক।

আপনারা কেন ঢাকা শহর ছেড়ে গ্রামে চলে গেলেন? আপনি কি ভাইরাস মুক্ত? বর্তমানে ১৯৯ টি দেশে এই ভাইরাস ছডিয়ে পড়েছে। ৪ লক্ষের বেশি মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত। সব দেশে কি বাঙ্গালীরা ভাইরাস দিয়ে আসছে? দেশে প্রবাসীদের উপর খারাপ আচরণ করা হচ্ছে।

বিভিন্ন জায়গায় লিখে দেয়া হয়েছে প্রবাসীদের প্রবেশ নিষেধ। মনে হয় যে প্রবাসীরা ভিন্ন গ্রহের মানুষ, হায়রে মানুষ…। আতংকের কারনে মানুষ দিশে হারা হয়ে গেছে। ইতালি স্পেনে যে হারে মানুষ মরছে, ভয় বা আতংকিত না হয়ে যাবে কোথায়? যাদের পরিবার দেশে আছে তাদের আতংকটা বেশি।

অনেকেই হয়তো মনে করছেন- যদি মরে যাই লাশটা তো দেশে যাবে না,  মরার আগে পরিবারকে দেখতে পারবোনা, তাই ভীত হয়ে দেশে চলে গেছেন। আবার অনেকে চিন্তা করেছেন সব যেহেতু বন্ধ, এই ফাঁকে দেশ থেকে ঘুরে আসি ইত্যাদি।

দেশে-বিদেশ সবারই সতর্ক থাকা উচিত। সাবধান থাকা উচিত, বাজে মন্তব্য করা উচিত নয়। দেশটা আপনাদের একার নয় দেড় কোটি প্রবাসীরও। বতর্মানে দেশে যে সব প্রবাসী ভাই এবং পরিবার আছেন তাদের সাথে ভালো ব্যবহার করুন। আপনিও সম্মানিত হবেন।

  • রিয়াদ, মাদ্রিদ, স্পেন। 
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.