Featured দূতাবাস খবর মধ্যপ্রাচ্য সৌদি আরব

জেদ্দায় ‘কনস্যুলার সেবা সপ্তাহ’; ৪৮৮৮ জনকে সেবা প্রদান

জেদ্দায় ‘কনস্যুলার কনস্যুলার সেবা সাপ্তাহ’-এর মাধ্যমে সরাসরি আবেদন গ্রহণ, পাসপোর্ট ডেলিভারি, আউটপাস প্রদান, সমস্যা শ্রবণ ও এনওসি প্রদান, আইনি সহায়তা, গণশুনানী, ডিপোর্টেশন সেন্টার ভিজিট, হাসপাতাল ভিজিট, কারাবন্দী বাংলাদেশিদের সাথে সাক্ষাৎ, প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান, সেইফ হাউসে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন এবং প্রত্যেক কর্মকর্তা/কর্মচারি প্রতিদিন ন্যূনতম ১০ জন প্রবাসীর সাথে টেলিফোনে যোগাযোগসহ আরও কয়েকটি বিষয়ে ৪৮৮৮ জনকে সেবা প্রদান করা হয়।

বাংলাদেশের স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা হতে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ’কে উৎসবমুখর পরিবেশে উদ্যাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, জেদ্দায় ২০-২৫ মার্চ ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দ “কনস্যুলার সেবা সপ্তাহ-২০১৮” পালনে সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। কনস্যুলেট কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে সন্ধ্যা “চলচ্চিত্র প্রদর্শন” “বাউল গান” পরিবেশিত হয়। কনস্যুলার সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে কনস্যুলেট প্রাঙ্গণ বর্ণিল আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়।

সেবা প্রত্যাশীগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে সেবা গ্রহণ করেন। উক্ত সময়ে প্রদানকৃত সেবার বিবরণ কনস্যুলার সেবা সপ্তাহে মোট ১৭১ জন প্রবাসী বাংলাদেশী ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের সদস্যপদ গ্রহণ করেছেন।

এবাবদ মোট আয় হয়েছে ২৯,০৭০.০০ সৌদি রিয়াল। সর্বমোট ২৪০ জন প্রবাসী বাংলাদেশির সাথে সরাসরি কথা বলে প্রয়োজনীয় আইনগত পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে; কনস্যুলেট হতে টেলিফোনে ২১৬৪ জন প্রবাসী বাংলাদেশির সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে; সর্বমোট ১৪ জন মৃত প্রবাসী বাংলাদেশির মৃতদেহ (পরিবারের সম্মতির ভিত্তিতে) স্থানীয়ভাবে দাফন/বাংলাদেশে প্রেরণের নিমিত্ত খরচ প্রদান করা হয়েছে; ৫১৫টি পাসপোর্ট ডেলিভারি প্রদান করা হয়েছে; ৭১৩টি নতুন এম.আর.পি আবেদন গ্রহণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:

কানাডায় প্রবেশ করার বিশেষ সুযোগ এখনি

লেবাননে স্ত্রীর হত্যাকারী বাংলাদেশি আটক

এবাবদ আয় হয়েছে ৯২,০৬৫.০০ সৌদি রিয়াল; ২৮৮টি রি-ইস্যু এম.আর.পি আবেদন গ্রহণ করা হয়েছে। এবাবদ আয় হয়েছে ২২,৯৫০.০০ সৌদি রিয়াল; ১৩৪ টি অনিস্পত্তিকৃত আবেদনকারীকে ফোন করে ডেকে ১০১টি নিস্পন্ন করা হয়েছে; ২৮টি জন্ম নিবন্ধন করা হয়েছে।

এবাবদ আয় হয়েছে ১,১৬০.০০ সৌদি রিয়াল; ২১টি সত্যায়ন করা হয়েছে। এ বাবদ আয় হয়েছে ১,৪০০.০০ সৌদি রিয়াল; ১টি এনডোর্সমেন্ট করা হয়েছে। এবাবদ আয় হয়েছে ৮৫.০০ সৌদি রিয়াল; ৯টি ভিসা প্রদান করা হয়েছে। এবাবদ আয় হয়েছে ১,৩১০.০০ সৌদি রিয়াল; ২০টি আউটপাস প্রদান করা হয়েছে।

এবাবদ আয় হয়েছে ২,০০০.০০ সৌদি রিয়াল; ৪১০টি আউটপাস সুমাইসী ডিপোর্টেশন ক্যাম্পে প্রদান করা হয়েছে; ৪টি প্রত্যয়নপত্র প্রদান করা হয়েছে। এবাবদ আয় হয়েছে ৪৪০.০০ সৌদি রিয়াল; ৪৩টি সাধারণ একাউন্ট খোলা হয়েছে; ১১টি এফ.সি. একাউন্ট খোলা হয়েছে; ১,১৩,২৫,০০০.০০ টাকার ২৫টি বন্ড করা হয়েছে; প্রায় ২৭০ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে ফ্রি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়েছে।

 

  • মোবারক হোসেন ভূঁইয়া, প্রবাস কথা, জেদ্দা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.