Featured এশিয়া সিঙ্গাপুর

করোনা ভাইরাস; সিঙ্গাপুরে সব বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ ঘোষণা

শেয়ার করুন

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে আগামী ২৬ মার্চ রাত ১১টা ৫৯ মিনিট থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত দেশটির সব বার, সিনেমা হল ও অন্যান্য বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে। 

দেশটির মাল্টি-মন্ত্রণালয়ের টাস্কফোর্স আজ জানিয়েছে যে, বিভিন্ন স্কুল থেকে শিক্ষার্থীদের সমাগম কমাতে এবং শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা বাড়ানোর জন্য সমস্ত কেন্দ্রভিত্তিক টিউশন এবং সমৃদ্ধকরণ ক্লাস স্থগিত করা হবে।

এছাড়া সমস্ত ধর্মীয় সেবা স্থগিত থাকবে৷ শপিং মল, যাদুঘর এবং রেস্তোঁরাগুলিকে উন্মুক্ত থাকার জন্য ভিড়ের ঘনত্ব হ্রাস করতে হবে।

আগামীকাল বুধবার (২৫ মার্চ) রাত সাড়ে ১১ টা ৫৯ মিনিটের পর ব্রিটেন এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে আসা সমস্ত সিঙ্গাপুরের বাসিন্দা বাসায় ফিরতে পারবে না। তাদের হোটেলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে৷

যারা কোয়ারেন্টাইন আইন লঙ্ঘন করবে তাদেরকে ১০ হাজার ডলার জরিমানা বা ছয় মাসের জেল বা উভয় দণ্ডের মুখোমুখি হতে হবে।

আগামী ২৭ শে মার্চ থেকে সিঙ্গাপুর বাহিরের দেশে বেড়াতে গেলে যে কোনও সিঙ্গাপুরের বাসিন্দা বা দীর্ঘমেয়াদী পাস ধারককে (Long-term pass holders)অসুস্থ হলে চিকিৎসার জন্য সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা উচিত হলে তারা আনসবিসাইডেড হারের চার্জ নেওয়া হবে।

তারা সরকারী এবং বেসরকারী হাসপাতালে এই চিকিৎসার জন্য মেডিজিল্ড লাইফ বা ইন্টিগ্রেটেড শিল্ড প্ল্যানস থেকে দাবি করতে সক্ষম হবে না।

এদিকে দেশটিতে আজ ৪৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। যার মধ্যে ৩২জন অন্য দেশের সাথে লিংক রয়েছে।

সিংগাপুরের জাতীয় উন্নয়ন মন্ত্রী লরেন্স ওয়াং এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, পদক্ষেপগুলি প্রাক-উদ্বেগজনক হলেও বাস্তব ঝুঁকির সময়ে আসে।

তিনি জানান, সারা বিশ্ব জুড়ে লক্ষ লক্ষ মানুষ একটি ভিন্ন বাস্তবতায় জীবনযাপন করছে। কর্মস্থল বন্ধ রয়েছে, দোকান, রাস্তাগুলো খালি রয়েছে। সবাইকে বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে। আমরা সিঙ্গাপুরে এটি অনুভব করছি না।  এখনও নয়, তবে আমরা আত্মতুষ্ট হতে পারি না।

তিনি আরও বলেন, অন্য দেশের সাথে সম্পর্কিত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী বিচ্ছিন্ন করার চেষ্টা করার পরও অন্য দেশের সাথে সম্পর্কিত করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে৷ এতে স্থানীয়দের মাঝে ভাইরাসের আক্রান্তের ঝুঁকি বেড়ে যাচ্ছে৷ তাই আমাদের পরিবারের সদস্যদের এবং আমাদের চারপাশের মানুষদের রক্ষার জন্য গুরুত্ব সহকারে এই পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হয়েছে।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রী বলেন, কোন জায়গায় অবশ্যই ১০ জনের বেশি গ্রুপ হবে না। অভ্যন্তরীণ এবং আউটডোর শো আকর্ষণীয় স্থানগুলির মধ্যে এবং খোলা অডিটোরিয়াম বিক্রয় ইভেন্টগুলি স্থগিত করা হবে৷ খুচরা মল অন্যান্য প্রয়োজনীয়তা মেনে চলতে না পারলে তাদেরকে অতিরিক্ত জরিমানা করা হবে৷

স্বাস্থ্য মন্ত্রী আরও বলেন, খাদ্য ও পানীয়ের স্থানগুলির জন্য বিদ্যমান ব্যবস্থা প্রয়োগ অব্যহত রয়েছে। যেসব খাবারের টেবিলে একাধিক ব্যক্তি বসতে পারে সেসব টেবিলগুলি অবশ্যই ফাঁক করে রাখতে হবে। রাতের খাবারের গ্রুপগুলি ১০ জন বা তার চেয়ে কমের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকতে হবে।

এছাড়া ধর্মীয় সমাবেশগ বিষয়ে মন্ত্রণালয় বলে, যে পরিষেবাগুলি স্থগিত করা হবে। তবে ব্যক্তিগত উপাসনা এবং প্রয়োজনীয় অনুষ্ঠানের জন্য উপাসনা স্থানগুলি উন্মুক্ত থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে গ্রুপ গুলোতে ১০ জন বা তার চেয়ে কম সংখ্যক ব্যক্তি একসাথে থাকতে হবে৷

  • ওমর ফারুকী শিপন, সিঙ্গাপুর। 

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.