Featured বাংলাদেশ থেকে

উত্তরার দিয়াবাড়ির কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের কার্যক্রম বন্ধ

শেয়ার করুন

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সেনাবাহিনীর আওতাভুক্ত দুটি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের ঘোষণা করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। আশকোনা ও উত্তরা দিয়াবাড়িতে স্থাপিত এই কোয়ারেন্টাইন সেন্টারগুলোর মূল দায়িত্বে থাকবে সেনাবাহিনী- এমনটা জানানো হলেও উত্তরার দিয়াবাড়িতে স্থাপিত হচ্ছেনা কোয়ারেন্টাইন সেন্টার। বিভিন্ন জটিলতার কারণে দিয়াবাড়ির কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের কার্যক্রম বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার (২০ মার্চ) রাতে উত্তরার দিয়াবাড়ির কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে সরঞ্জাম সরিয়ে নিয়েছে সেনাবাহিনী। বাংলাট্রিবিউনে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ বিষয়ে জানা যায়।

কোয়ারেন্টাইনের বিষয়ে আইএসপিআরের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আব্দুল্লাহ ইবনে জায়েদ সংবাদ মাধ্যমকে বলেন,

‘কিছু জটিলতার কারণে দিয়া বাড়ির কোয়ারেন্টিন সেন্টারের কার্যক্রম বাতিল করা হয়েছে। এখন সেই সেন্টারটি কোথায় পরিচালনা করা হবে সেই সিদ্ধান্ত পরে জানানো হবে।’

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) রাতে প্রকাশিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে আশকোনা হজক্যাম্প ও উত্তরা দিয়াবাড়ির রাজউকের ফ্ল্যাট প্রকল্প এলাকায় করা কোয়ারেন্টাইনের দায়িত্বে থাকবে সেনাবাহিনী।

প্রকাশিত এই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়,

বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের বাংলাদেশে সংক্রমণ ও বিস্তৃতির সম্ভাব্যতা এবং প্রেক্ষাপট বিবেচনায় বাংলাদেশ সরকারের সিদ্ধান্তে কোয়ারেন্টাইনের দায়িত্ব সেনাবাহিনীর হাতে ন্যস্ত করা হয়েছে। সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে এই দুটি কোয়ারেন্টানের সব ধরনের কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

বিদেশফেরত যাত্রীদের বিমানবন্দরের ‘স্ক্রিনিং’ শেষে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকা উচিত বলে মনে করবে তাদেরকে সেনাবাহিনীর হাতে ন্যস্ত করা হবে।

কোয়ারেন্টিন সেন্টারে স্থানান্তর, ডিজিটাল ডাটা এন্ট্রি কার্যক্রম সম্পন্ন, কোয়ারেন্টিন সেন্টারে থাকাকালীন সময়ে আহার, বাসস্থান, চিকিৎসা এবং অন্যান্য আনুষাঙ্গিক সেবা প্রদানের ব্যবস্থা করা হবে। এ কর্মসূচি বাস্তবায়নে সেনাবাহিনীকে সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য মন্ত্রণালয়, সংস্থা, অধিদফতর ও বাহিনী প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করবে।

তবে এই কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের ঘোষণার পর পরই দিয়াবাড়ির স্থানীয় জনগণ এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানায় ও দিয়াবাড়িতে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার স্থাপন না করার অনুরোধ জানায়।

উল্লেখ্য, বর্তমানে বাংলাদেশে ২০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৩ জন এবং মারা গেছেন ১ জন।

  • প্রবাস কথা ডেস্ক।
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.