Featured অভিবাসন অস্ট্রেলিয়া ওশেনিয়া শিক্ষা

অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন ভিসায় পরিবর্তন; চালু হচ্ছে নতুন ভিসা

পরিবর্তন এসেছে অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন আইন ও ভিসা আবেদন প্রক্রিয়ায়। এর মধ্যে কয়েকটি ইতিমধ্যে প্রকাশ করেছে অভিবাসন বিভাগ। জেনে নেওয়া যাক সে পরিবর্তনগুলো।

কর্মভিসায় কর হিসাব দেখবে অভিবাসন বিভাগ

সাবক্লাস ৪৫৭ বা ৪৮২ কর্মভিসাধারীদের ট্যাক্স ফাইল নম্বর জোগাড় করবে অভিবাসন বিভাগ। ভিসাধারীকে তাঁর স্পনসর ভিসায় উল্লেখিত বেতন প্রদান করছে কিনা সেটি খতিয়ে দেখতেই দেশটির কর বিভাগের সঙ্গে কাজ করবে অভিবাসন বিভাগ।

সময় বেড়েছে পার্টনার ভিসা প্রক্রিয়ার

পারিবারিক কলহের ঘোর বিরোধী অস্ট্রেলিয়া। পারিবারিক সহিংসতা কমাতে গত বছর নভেম্বরে নানা আইন পাস হয় দেশটির সংসদে। সেই আইনের ধারাবাহিকতায় অস্ট্রেলিয়ার পার্টনার ভিসার স্পনসরকে আগে অনুমোদিত হতে হবে। অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত স্বামী বা স্ত্রীর চারিত্রিক অতীত ভালোভাবে খতিয়ে দেখবে দেশটির অভিবাসন বিভাগ। আর অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা একজন স্পনসর হিসেবে অনুমোদন পেলে তবেই দেশটির বাইরে অবস্থানরত স্ত্রী বা স্বামীর পার্টনার ভিসা আবেদন করা যাবে। সব মিলিয়ে ভিসাটির প্রক্রিয়ার সময় বাড়বে।

নতুন সাময়িক স্পনসরড প্যারেন্টস ভিসা

এ বছর অস্ট্রেলিয়ার স্থায়ী বাসিন্দা ও নাগরিকদের বাবা–মার জন্য নতুন ভিসা চালু করছে অভিবাসন বিভাগ। নতুন বছরের মাঝামাঝির মধ্যেই ভিসাটি চালু হওয়ার কথা রয়েছে। এ ভিসার আওতায় স্পনসর হওয়া বাবা–মা সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের জন্য অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসের সুযোগ পাবেন। বছরে ১৫ হাজার ভিসা দেবে অভিবাসন বিভাগ। ভিসা খরচ পড়বে ৫ থেকে ১০ হাজার অস্ট্রেলীয় ডলার। সর্বোচ্চ দুবার এই ভিসায় আবেদন করা যাবে। অর্থাৎ মোট ১০ বছর অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসের সুযোগ থাকছে।

শিক্ষার্থী ভিসায় আর্থিক সক্ষমতা পরিমাণ বাড়বে

এ বছর থেকে শিক্ষার্থী ভিসায় অস্ট্রেলিয়ায় আসতে চাইলে আর্থিক সচ্ছলতা প্রমাণ স্বরূপ কমপক্ষে ২০ হাজার ২৯০ ডলার দেখাতে হবে। পার্টনারের জন্য বাড়তি আরও ৭ হাজার ১০০ ডলার এবং প্রতি সন্তানের জন্য ৩ হাজার ৪০ ডলার দেখাতে হবে।

উদ্যোক্তাদের জন্য সাউথ অস্ট্রেলিয়ার নতুন ভিসা

দেশটির সাউথ অস্ট্রেলিয়া রাজ্য সরকার উদ্যোক্তাদের জন্য নতুন ভিসা চালু করতে যাচ্ছে। নতুন ভিসাটির প্রক্রিয়া অন্যান্য ব্যবসায়িক ভিসার মতো জটিল হবে না। রাজ্য সরকার জানিয়েছে, এ ভিসা পেতে ২ লাখ ডলারের পুঁজি থাকা বাধ্যতামূলক নয়। তবে আবশ্যিক অর্থের পরিমাণ এখনো নির্দিষ্ট করে জানানো হয়নি। এ ছাড়া, ইংরেজি ভাষা দক্ষতার পরীক্ষা আইইএলটিএসে ব্যান্ড স্কোর ৫ হলেই ভিসা আবশ্যিক শর্ত পূরণ হবে।

লিখেছেন:  কাউসার খান, অভিবাসন আইনজীবী, সিডনি, অস্ট্রেলিয়া। ইমেইল: <immiconsultants@gmail.com>

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.