Featured বাংলাদেশ থেকে

১১ হাজার অবৈধ বিদেশিকে ফেরত পাঠাবে বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

অবৈধ প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রায়শই পড়তে হয় ভিসাজনিত সমস্যায়। শুধু যে প্রবাসী বাংলাদেশিরাই দেশে ফিরে আসবেন এমনটা কেন হবে? এবার ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও বাংলাদেশে অবৈধভাবে অবস্থান করা প্রবাসীদের ফিরিয়ে দিবে বাংলাদেশ।

দেশে অবৈধভাবে বসবাস করা প্রায় ১১ হাজার বিদেশিকে নিজ খরচে ফেরত পাঠানোর পরিকল্পনা করেছে সরকার।

আজ বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের সামনে এ তথ্য জানান কমিটির সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

অবৈধ বিদেশিদের প্রসঙ্গে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন,

অনেক বিদেশি নাগরিক এ দেশে আসার পর ভিসার মেয়াদ শেষ হলেও যান না। তারা মেয়াদোত্তীর্ণ অবস্থায় আছেন। আমাদের গত সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছিল তাদের চিহ্নিত করার। গোয়েন্দা সংস্থা তাদের চিহ্নিত করেছে। এখন সমস্যা দেখা দিয়েছে, ফেরত যাওয়ার টাকাও তাদের কাছে নেই। সরকারের কাছে অনুরোধ করব, কিছু টাকা বরাদ্দ দেয়ার জন্য। যাতে অবৈধভাবে বসবাসকারীদের তাদের দেশে ফেরত পাঠানো যায়।

অবৈধ বিদেশিদের সংখ্যার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন,

১১ হাজারের মতো অবৈধ বিদেশি আছে এখানে। এরা বিভিন্ন দেশের, বিশেষ করে, আফ্রিকার দেশগুলোরই বেশি; নাইজেরিয়া, তানজানিয়া- এসব দেশের নাগরিক। মূলত ক্রিমিনাল টাইপের লোকই থেকে যায়।

অবৈধ বিদেশিদের নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন,

এরা ভিসা নিয়েই ঢুকেছিল। তাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে কিংবা অবৈধভাবে রয়েছে কিংবা কোনো ক্রাইমে জড়িত হয়েছে। তারা আমাদের জেলখানায় রয়েছে। তাদের কারাদণ্ডের মেয়াদ শেষ হলেও দূতাবাসগুলোতে যোগাযোগ করার পরও নিয়ে যাচ্ছে না। যারা ব্যবসা-বাণিজ্য করতে আসে তাদের অজান্তেই ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে- এমন সংখ্যাও আছে।

তবে কতজন অবৈধ বিদেশি কারাগারে রয়েছেন- এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন,

আরেক দিন জানাব।

অবৈধ বিদেশিদের পাশাপাশি রোহিঙ্গা সংকটের বিষয়েও কথা বলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী ।রোহিঙ্গাদের পাসপোর্টের বিষয়ে তিনি বলেন,

রোহিঙ্গারা অতীতে বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে বিদেশে গেছে। আগের মিটিংয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছিল যাতে পাসপোর্ট না হয়। এখন থেকে কোনো রোহিঙ্গা বাংলাদেশি পাসপোর্ট পাবে না।

এ সভায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীর সভাপতিত্বে  উপস্থিত ছিলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদসহ অন্য কর্মকর্তারা।

  • সুমাইয়া হোসেন লিয়া, প্রবাস কথা, ঢাকা।
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.