ইউরোপ এশিয়া মধ্যপ্রাচ্য মালয়েশিয়া সৌদি আরব

বিরল রোগ দিনে দিনে ক্ষয় করছে চোখের আলো; সাহায্যের আবেদন

শেয়ার করুন

ছোট খাট ব্যবসা করার পাশাপাশি গান গেয়ে মানুষের মুখে হাসি ফোটিয়ে আনন্দ পেতেন সিলেটের মোঃ শরীফ আহমদ চৌধুরী (লিটন) ৷ অন্যদের মুখে হাসি ফোটানোর মানুষটির নিজের মুখের হাসিই কেরে নিয়েছে এক বিরল ব্যাধি ৷ এখন সংসার চলার চাকা থামিয়ে কেবল এই রোগের সাথে দিনাতিপাত করতে হচ্ছে তাকে ৷

‘ভিকেএইচ’ নামের এক বিরল রোগ বাসা বেধেছে শরিফের শরীরে ৷ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভিকেএইচ মাইন্ডিনযুক্ত পিগমেন্ট টিস্যুগুলিকে প্রভাবিত করে এমন অটোইমিউন কারণের বহু বিধ জটিলতা তৈরি হয়। এটি পরিবর্তনীয়ভাবে অন্তর কানের সাথে জড়িত হতে পারে, শ্রবণে প্রভাব ফেলে, ত্বক এবং কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের মেনিনেজগুলিতেও বিরুপ প্রভাত সৃষ্টি করে ৷

বিশ্বের মাত্র কয়েক হাজার মানুষ এই ‘ভিকেএইচ’ রোগে ভুগছেন। দূর্ভাগ্যক্রমে শরীফ চৌধুরী তাদের মধ্যে একজন। এই রোগের কারণে তিনি এখন প্রায় অন্ধ। গত তিন বছরেরও অধিক সময় তিনি এই রোগে ভুগছেন ৷ কিন্তু প্রায় ছয় মাস আগে ডাক্তাররা এটি শনাক্ত করতে সক্ষম হয় ৷ অন্যদিকে তিনি ধীরে ধীরে চোখের দৃষ্টি হারাতে থাকেন। এখন সমস্ত কিছুই তাঁর কাছে অস্পষ্ট।

শ্বাসকষ্ট নিয়ন্ত্রণে মেনে চলতে পারেন যে নিয়মগুলো

এই রোগের চিকিৎসা যেমন ব্যয়বহুল তেমনি বাংলাদেশে এর কোনো চিকিৎসা নেই ৷ দেশের বাইরে অত্যাধুনিক চিকিৎসায় এই রোগ সম্পূর্ণ নির্মূল সম্ভব ৷ তাই চিকিৎসা সুবিধা পাওয়ার জন্য শরীফ চৌধুরীকে ভারতে যেতে হবে ফলে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন ৷ পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী তিনি এখন সাহায্যের জন্য মানুষের উপর নির্ভর করছেন ৷ নিজের সামর্থের সবটুকু শেষ করে চিকিৎসার অর্থ যোগাতে ‘গোফাউন্ডমি’ নামের এক সাইটের মাধ্যমে সাহায্য কমনা করছেন ৷ মোঃ শরীফ চৌধুরীর স্বজন,বন্ধু-বান্ধরা অনুরোধ করেছে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী দান করার ৷ তাদের প্রতশ্যা দেশ বিদেশে থাকা সচ্ছল মানুষদের সাহায্যে শরীফ আবারো চোখের আলোয় দুনিয়া দেখতে পারবেন ৷

মোঃ শরীফ চৌধুরীকে অনলাইনে অর্থ দানের জন্য বিস্তারিত এই লিংকে দেওয়া আছে- https://www.gofundme.com/f/1tl4jlqj00

অথবা- পূবালী ব্যাংক লিমিটেড’র শরীফ আহমদ চৌধুরী (লিটন) এর নামের ২৪৪৬১০১০৬০৩৫৮, একাউন্ট নম্বরে অর্থ পাঠানো যাবে ৷

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.