ক্রাইসচার্চের মসজিদে হামলায় অন্তত ৪৯ জন নিহত হয়েছে

FB_IMG_1552632486127-620x413.jpg

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইসচার্চের মসজিদে হামলায় অন্তত ৪৯ জন নিহত হয়েছে। নিউজিল্যান্ড এর প্রধানমন্ত্রী এ তথ্য দিয়েছেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দল ‘আল নূর’ নামক মসজিদে জুমআর নামাজ আদায় করতে গিয়েছিল এই ঘটনার মাত্র কয়েক মিনিট পর। বাংলাদেশ দল ১.৩০ মিনিটের সময় এই মসজিদে নামাজ আদায়ের উদ্দেশ্যে বের হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কাকতালীয়ভাবে বাংলাদেশ দলের প্রেস ব্রিফিং ১.৪০ মিনিটে শেষ হয়। যার ফলে বেঁচে যায় টাইগাররা।

খুনি ব্রেন্টন ট্যারান্ট ১৬ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের এই হত্যাকান্ডের পুরোটা সময় লাইভে ছিল। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ- নিউজিল্যান্ড এর তৃতীয় টেস্ট বাতিল করা হয়েছে।

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডেন বলেছেন, “হতাহতের সংখ্যা সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে কিছু বলা সম্ভব না হলেও আমি এটা বলতে পারি যে এটি নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসের কলঙ্কময় দিনগুলোর একটি।”

পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ পরে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, তিনজন পুরুষ এবং একজন নারীকে তারা আটক করেছেন।

পুলিশ লোকজনকে ওই এলাকার দিকে না যেতে সতর্ক করেছে। এদিকে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিশ্চিত করেছেন যে আততায়ীদের একজন অস্ট্রেলিয়ান।

তবে আল নূর মসজিদের পাশাপাশি আরেকটি মসজিদে হামলা হয়েছে বলে পুলিশ সদস্যদের পক্ষ থেকে মসজিদগুলোতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সেই সাথে তারা হামলার আশেপাশের এলাকা থেকে অবিস্ফোরিত বোমাও উদ্ধার করেছে পুলিশ। হামলাকারীদের নিকট থেকে ‘IED’ বা ইম্প্রোভাইসড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস উদ্ধার করা হয়েছে। যা থেকে পুলিশ নিশ্চিত করছে এই পুরো ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত।

২০১৮ সালে নিউজিল্যান্ড বিশ্বের অন্যতম শান্তিপ্রিয় দেশের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল। নিউজিল্যান্ড এর মোট জনসংখ্যার ১.১% মুসলিম, যাদের সংখ্যা ৪৬ হাজার। সেক্ষেত্রে এই নেক্কার জনক হামলার ঘটনাটি পুরো বিশ্বের শান্তিতে হুমকী স্বরূপ।

সুমাইয়া হোসেন লিয়া, প্রবাস কথা, ঢাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.