লিবিয়া

লিবিয়ায় ৩টি নৌকা ডুবে ২৫০ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা; বাংলাদেশীও আছে

লিবিয়া উপকূল থেকে বুধবার রাতে ছেড়ে যাওয়া ৩টি নৌকা ডুবে প্রায় ২৫০ জনের প্রাণহানীর আশঙ্কা করা হচ্ছে। ডুবে যাওয়া ঐ নৌকাগুলোতে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশীদরও থাকার খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া লিবিয়ার সাব্রাতা ও জোয়ারা এলাকায় গোডাউনে এবং বাসা-বাড়ীতে ইউরোপ যাওয়ার জন্য বাংলাদেশীসহ কয়েক হাজার যাত্রী এখনও অবস্থান করছে বলে জানা গেছে। কিছু দিনের মধ্যে যে কোন সময় তারা রওনা হবে ইউরোপের পথে। তাদের কপালে কি জুটবে কে জানে ! প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, হালকা শীত উপেক্ষা করে সাগর উত্তাল থাকা সত্ত্বেও জোয়ারা ও সাব্রাতা এলাকা থেকে ৩টি ছোট ছোট নৌকা প্রায় আড়াই’শ যাত্রী নিয়ে গত বুধবার গভীর রাতে ছেড়ে যায়। নৌকাগুলো প্রায় আড়াই ঘন্টা যাওয়ার পর সাগরের উত্তাল ডেউয়ের মাঝে পড়ে এবং এর কিছুক্ষণ পর ১৪২ জনের একটি নৌকার নাবিক উপকূলে খবর দিয়ে জানান, নৌকার নিয়ন্ত্রণ রাখা সম্ভব হচ্ছে না। এর কিছুক্ষণ পর ঐ বোটের সাথে সম্পূর্ণ যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

Like Newপরে আরো দুটি নৌকার কোন প্রকার খোঁজ-খবর না পাওয়ায় সকাল হতে না হতেই জোয়ারা ও সাব্রাতা এখাকায় নৌকাডুবির সংবাদ ছড়িয়ে পড়ে। সময় গড়িয়ে যাওয়ায় ঐ আড়াই’শ যাত্রীর কপালে কি জুটেছে তা পরিষ্কার হতে চলেছে। প্রতি বছর আগষ্ট মাসের মাঝামাঝিতে লিবিয়ায় কিছুটা শীত অনুভব হতে শুরু করে। হিমেল হাওয়ায় সাগর উত্তাল ও ঠান্ডায় সাগরের কোন কোন স্থানে বরফের স্তর পরে যায়। এতে বোট ছাড়া থেকে বিরত থাকে মানব পাচারকারীরা। আশ্চর্য হলেও সত্য যে, এবার নভেম্বরর শুরুতে হালকা শীতের মধ্যেও ইউরোপের উদ্দেশ্যে সাগরে নামছে মানুষ ! এতে একের পর এক মৃত্যুর ঘটনা ঘটলেও ইউরোপের স্বপ্নে বিভোর হয়ে মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়েই মৃত্যু সাগর পাড়ি দেয়ার চেষ্টা করছে অসংখ্য মানুষ। এ যাত্রা কবে থামবে তা এখনো নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয় !

Orpon Mahmud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.