আসামে বাংলাদেশি হিন্দুদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দাবিআসামে বাংলাদেশি হিন্দুদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দাবি
অভিবাসন এশিয়া ভারত

আসামে বাংলাদেশি হিন্দুদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দাবি

শেয়ার করুন

ভারতীয়-আমেরিকান কয়েকটি সংগঠন যুক্তরাষ্ট্রে এক ক্যাম্পেইন শুরু করেছে। আসামের যে হিন্দু অভিবাসীরা বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাড়ি জমিয়ে আসামের জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকা (এনআরসি) তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন; তাদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেয়ার দাবি করা হচ্ছে এ ক্যাম্পেইনে।

জাগোনিউজ২৪ তাদের এক সংবাদে জানায়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সিংহ বাহিনী আমেরিকা, গ্লোবাল হিন্দু হেরিটেজ ফাউন্ডেশন এবং নববঙ্গ সংগঠনের ব্যানারে এ ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। এ ক্যাম্পেইন থেকে ২০১৬ সালের নাগরিকত্ব বিলের প্রতি সমর্থন চান তারা। ২০১৬ সালের ওই বিলে প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে আশ্রয় নিতে আসা নির্যাতিত সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব প্রদানের জন্য ১৯৯৫ সালের ভারতীয় নাগরিকত্ব আইনে সংশোধনী আনার দাবিও করেছেন তারা।

সম্প্রতি শিকাগোতে বিশ্ব হিন্দু কংগ্রেসের প্রতিনিধিরা ভারতীয় নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাত করেন। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিশ্ব হিন্দু কংগ্রেস বলছে, বাংলাদেশি অবৈধ অভিবাসীদের চিহ্নিত করতে আসামে বহুল আলোচিত জাতীয় নাগরিকত্ব তালিকা করা হলেও দেখা গেছে, বিপুল পরিমাণ হিন্দুর নাম সেই তালিকা থেকে বাদ পড়ে গেছে। আনুমানিক ১৪ থেকে ২৫ লাখ হিন্দু তাদের ভারতীয় নাগরিকত্ব খুইয়েছেন।

আসামে বাংলাদেশি হিন্দুদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দাবি
আসামে বাংলাদেশি হিন্দুদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দাবি

এসব হিন্দু ভাই-বোনের পূর্বপুরষরা বাংলাদেশে নানারকম অত্যাচারের সম্মুখীন হয়ে ভারতে এলেও; তারা তাদের বিশ্বাস ত্যাগ করেননি।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ভারতীয় সম্পদ তাদের নাগরিকদের কাছে পৌঁছানোর জন্য প্রত্যেকটি রাজ্যে জাতীয় নাগরিকত্ব তালিকার প্রয়োজন আছে। কিন্তু একই সঙ্গে বাংলাদেশ থেকে আসা দরিদ্র হিন্দুদের রক্ষা করাও ভারতের জন্য সমান গুরুত্বপূর্ণ।

বিশ্ব হিন্দু কংগ্রেসের ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০১৪ সাল পর্যন্ত পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান থেকে আসা নির্যাতিত হিন্দু, শিখ এবং জৈন সংখ্যালঘুদের ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদানে ২০১৬ সালের নাগরিকত্ব বিল হলো ঐতিহাসিক হিন্দু ঐক্যের মাইলফলক। যা হিন্দুদের কাছে একটি বার্তা পৌঁছাবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.